কিউবী কথন

কিউবী কিছুদিন আগেও ডাবল ইউজ অফারগুলো পত্রিকায় দিত। এখন আর তা করে না, মোবাইলে এসএমএস বা ইমেইল দিয়ে জানিয়ে দেয়। সবাইকে না জানিয়ে শুধু গ্রাহককে জানালে সেটা কিভাবে মার্কেটিং হয়, বুঝলাম না! যাহোক নভেম্বরের শেষদিকে এমন একটা অফার গেল। কার্ড কিনতে গিয়ে যে বিড়ম্বনায় পড়লাম তারই সাতকাহন এই পোস্ট। ডিপার্টমেন্টের ইন্ডিয়া ট্যুর নিয়ে সারাদিন দৌড়াদৌড়িতে আছি। অন্যদিকে তাকানোর সময় নেই। একেবারে নভেম্বর মাসের শেষদিন এসে মনে পড়ল, আরে! আজকে তো শেষদিন!! ঝুটঝামেলা শেষ করে রওনা দিলাম পলাশীর দিকে। হলের কাছে এই একটা জায়গাই ভরসা। আগেই ধরে নিলাম এখানে পাব না, এলিফ্যান্ট রোডের কিউবী স্টোর পর্যন্ত যেতে হবে। যেহেতু শেষদিন সুতরাং আমার কপালের হিস্টরী বলে যে আমাকে এলিফ্যান্ট রোডের মাল্টিপ্ল্যান সেন্টার পর্যন্ত যেতেই হবে। পলাশী গিয়ে যথারীতি পেলাম না। ৪০০টাকার কার্ড আছে কিন্তু ৭০০টাকার কার্ড নাই। বলাবাহুল্য ৭০০টাকার কার্ড খুঁজছিলাম। তাও আবার কিনব দুটো, একটা আমার আরেকটা ফ্রেন্ডের। বাটা সিগন্যালের রিকশা করলাম, যদিও জানতাম না রিকশা ওই পর্যন্ত যায় না। কাঁটাবনের মোড়ে গিয়ে নামতে হল। কাঁটাবনের মোড় থেকে এলিফ্যান্ট রোডের দিকে রওনা দিলাম। রাস্তায় পড়ল সুবাস্তু আর্কেডিয়া। ভাবলাম ঢু মেরে দেখি পাওয়া যায় কিনা। শুনশান মার্কেট, আইটি মার্কেট নামক জায়গাটার বেশিরভাগ দোকানই বন্ধ। আর যেগুলো খোলা আছে, দেখেই বোঝা যায় এখানে কিছু পাওয়া যায় না। এক দোকানে কিউবীর পোস্টার দেখে জিজ্ঞেস করলাম কার্ড আছে কিনা। উনি আমাকে বললেন ইউজার আইডি দিতে হবে, তাহলে উনি রিচার্জ করে দেবেন! আরে ভাই আমারটা নাহয় করলাম কিন্তু আরেকজনেরটা কি করে হবে! মিশন এবর্টেড। মাল্টিপ্ল্যান সেন্টার ছাড়া আর কোন মার্কেট ঢুকব না চিন্তা করে আবার হাটা শুরু করলাম। যাহোক কার্ড কেনার সময় বললাম আপনাদের কার্ড তো কোথাও পাওয়া যায় না, যথারীতি সেই গতবাধা উত্তর, স্যার আমরা কনসার্নড ডিপার্টমেন্টে জানাব। হাহ্ তোমরা কেমন জানাও আমার জানা আছে। তার চেহারা বলছিল, কার্ড তোমার কেনা দরকার মিয়া লাগলে চট্টগ্রাম গিয়া কিনবা!! যাহোক আবার অর্ধেক রাস্তা হেঁটে তারপর রিকশা নিয়ে হলে ফিরলাম। ৭০০ টাকার কার্ড কিনতে আরো ৫০টাকা খরচ আর বিড়ম্বনার কথা বাদই দিলাম। এসব কে কেয়ার করে!! যারা ব্যবহার করে তারা নিজের গরজেই করে। সুতরাং ভালো সার্ভিস দেয়ার চিন্তাভাবনা এদেশের টেলিকম সেক্টরের কারোরই নেই। বিটিআরসি শুধু নামে না হয়ে চরিত্রে সায়ত্বশাষিত হওয়া পর্যন্ত কোন লাভ হবে না। আর যেহেতু চরিত্রে পরিবর্তন হবার কোন সম্ভাবনা নেই, খুব তাড়াতাড়ি গ্রাহকদের বিড়ম্বনা কমারও কোন সম্ভাবনা নেই।

Advertisements

Solution to Yahoo! mail reactivation problem

I think a lot of guys had problem while reactivating yahoo! mail account while logging in after a long time. When you give your email address & password and hit sign in, the webpage redirects itself to something like https://mc1610.mail.yahoo.com/reactivate?farm= . After some time the page simply times out. After googling endless times I could not find out any solution. After trying some alternatives, I have come out with a solution. Wanna hear it? It’s very simple. Just remove the s from the last of https:// & hit enter. Bazinga! You’ve done it!

Note: The s stands for a secure connection. As it needs money to give this service, i’m willing to think yahoo! doesn’t want to spend money for securing the free services. That’s why a child investment of themselves alibaba is now willing to buy them.

Solving Typing Master Satellite unhandled error problem.

kboost error

While trying to run satellite at windows 7, sometimes an error shows telling “Program quits, Unhandled Error occurred Access violation at address 0045596B in module ‘KBOOST.EXE. Read of address 00000004”. I was trying to get a solution of the problem from typing master forum, but as far I’ve seen they are not giving any solution for this. So far I’ve seen most of the people using Typing master 7, are using cracked version like me. So they haven’t any way to ask for solution to Typing master. I’ve found a solution of the problem. Just follow the easy steps written below & get rid of the problem.

Step 1:
Go to C:/ (or the drive you have installed windows 7) > Program files (In 64bit version, it may be “Program files (x86)”) > Typing master. Then find the file named “KBoost.exe”. It is the exe file of the satellite. Right click on the file & find compatibility tab. This would look like this:
compatibility

Step 2:
Click on the checkbox “Run this program in compatibility mode for:” & set windows XP (Service Pack 3). Then click on the checkbox “Run this program as an administrator”. Click Apply & then OK. And we are done.
Again try to launch satellite & I think this time it will launch with no error. 🙂

You can download Typing Master 7 full version from this link.

জোসিলা ১৮+

চলছে মেয়েদের ব্রেস্ট স্ট্রোক সাঁতার প্রতিযোগিতা। সবার সাথে এক বিশালবক্ষা তরুণীও উপস্হিত। সাঁতার শুরু হলে যা হয়, সবাই ঝাপিয়ে পড়েছে পুলে। যথারীতি কিছুক্ষণের মাঝেই সবাই গিয়ে চলে এসেছে। শুধু বিশালবক্ষা তরুণী ডুবে আর ভেসে ভেসে অনেক কষ্টে সাঁতরিয়ে যাচ্ছে একটু একটু করে। বাকি প্রতিযোগীরা সাঁতার শেষ করে তোয়ালে দিয়ে পানি শুকিয়ে নিচ্ছে আর তরুণীটি সাঁতরিয়েই যাচ্ছে।

বলা বাহুল্য টিভি ক্যামেরা নিয়ে সাংবাদিকরা চলে এসেছে। সাংবাদিক থেকে শুরু করে সবার মাঝে আগ্রহ এত সময় লাগার কারণ কি তা জানা। তা তরুণীর প্রায় ৪৫ মিনিট লাগলো সাঁতার কেটে ঘুরে আসতে। সাংবাদিকেরা খুব আগ্রহ নিয়ে তার দিকে মাইক্রোফোন বাড়িয়ে দিয়ে প্রশ্ন করলো, মিস, ব্রেস্ট স্ট্রোক সাঁতারের এই আইটেমে প্রথম প্রতিযোগী মাত্র তিন মিনিটে সাঁতার শেষ করেছেন। আপনার এত সময় লাগার কারণ কি?

তরুণী হাঁপাতে হাঁপাতে উত্তর দিল, আমি সে রকম মেয়ে না যে হেরে গিয়ে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে চিটিং এর অভিযোগ আনব। তবে আমি নিশ্চিত আমি বাদে বাকি সবাই সাঁতারের সময় হাত ব্যবহার করেছে।

ফেসবুকের স্ট্যাটাস বা পোস্টের লিংক বের করবেন যেভাবে।


অনেক সময় নানা কারণে ফেসবুকের স্ট্যাটাস বা পোস্টের লিংক দরকার হয়। এক্ষেত্রে একমাত্র উপায় হচ্ছে নোটিফিকেশনে যে লিংক পাওয়া যায় সেটা ব্যবহার করা। কিন্তু ফেসবুকের নোটিফিকেশন পেজে দুইদিনের বেশি পুরোনো স্ট্যাটাস কিংবা পোস্টের লিংক পাওয়া যায় না। খুব সহজেই এ সমস্যার সমাধান করা যায়। এজন্য,
১. প্রথমে সেই স্ট্যাটাস বা পোস্টে যান।
২. স্ট্যাটাস বা পোস্টের টাইমস্ট্যাম্পে রাইট ক্লিক করে লিংকটি কপি করুন। ব্যাস হয়ে গেল।
Locating time stamp
৩. এখন এই লিংকটিকে সব জায়গায় রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করুন।

ফেসবুকের ক্ষেত্রে প্রাইভেসি মাথায় রাখতে হবে। অর্থাৎ প্রাইভেসি যাদের এলাউ করে তারাই শুধু সেই স্ট্যাটাস বা পোস্ট দেখতে পারবে। তবে পাবলিক স্ট্যাটাস বা পোস্টের ক্ষেত্রে এটা প্রযোজ্য না। টুইটারের ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতিতে পোস্টের লিংক বের করা যায়।

How to make hyperlink of a facebook status or post


If you want to hyperlink a Facebook status or post, the normal way is to copy the link from the notification page. But you will not find any posts older than two days there. So, question is how can you do it. It’s very simple. Let’s see how…
1. Go to the post.
2. Right click on the timestamp and copy the link location (Shown in the image below).
Locating time stamp
3. And you are done!!! Use the hyperlink anywhere as a reference.

But you have to remember the privacy. Those who are allowed to see the post, only they can see the post or status. Anyone can see public posts of status. You can use the process for twitter also. Thank you.

খেরোখাতা : ৩ : হল কথন, সিট যেখানে হতাশার গল্প

খেরোখাতা : ১ : পড়ুম না আমি কুয়েটে!!!

খেরোখাতা : ২ : সেকেন্ড টাইম!!!

ঢাবিতে যখন আমাদের ভর্তি প্রক্রিয়া চলছিল, তখন ছিল তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়। সবকিছু নিয়মনীতি অনুসারে চলছে। মনে ক্ষীণ আশা ছিল মেরিটে যেহেতু প্রথম দিকে, তাই সিট পেয়েও যেতে পারি। দুঃখের বিষয় জগন্নাথ হলে সম্পর্কে ধারণা ছিল না, থাকলে এতো কষ্ট করে আশা করতে হতো না। যেদিন হলে গেলাম ভর্তির কাজ করতে, অফিসে বসে থাকা একজনকে জিজ্ঞেস করলাম সিটের ব্যাপারে, তার নিরস উত্তর ছিল সিটের ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।

বিস্তারিত পড়ুন